সাইট মোবিলাইজেশন (Site Mobilization)

8
697
সাইট মোবিলাইজেশন কি মোবিলাইজেশনের ক্ষেত্রে কোন বিষয়গূলো গুরুত্বপুর্ণ
সাইট মোবিলাইজেশন কি? মোবিলাইজেশনের ক্ষেত্রে কোন বিষয়গূলো গুরুত্বপুর্ণ?

সাইট মোবিলাইজেশন (Site Mobilization) সিভিল ইঞ্জিনিয়ারদের জন্য খুবই পরিচিত একটি শব্দ। “Mobilization” এর বাংলা আবিধানিক অর্থ হচ্ছে একত্রিকরণ বা সন্নিবেশকরণ। সাইট মোবিলাইজেশন (Site Mobilization) হলো নির্মাণ কাজের প্রথম ও গুরুত্বপূর্ণ ধাপ। সুষ্ঠ ও সুন্দরভাবে প্রজেক্টের কাজ শুরু করার জন্য প্রাথমিকভাবে বিভিন্ন ধরণের প্রস্তুতি,লোকবল, মালামাল ও যন্ত্রপাতির সমাবেশ প্রয়োজন হয়। এই সমস্ত কিছুর একত্রীকরণই হলো সরঞ্জাম সন্নিবেশকরণ বা সাইট মোবিলাইজেশন (Site Mobilization)

সাইট মোবিলাইজেশন (Site Mobilization) হলো নির্মাণ কাজের প্রথম ও গুরুত্বপূর্ণ ধাপ। বিভিন্ন ধরণের প্রস্তুতি,লোকবল, মালামাল ও যন্ত্রপাতির একত্রীকরণই হলো সরঞ্জাম সন্নিবেশকরণ বা সাইট মোবিলাইজেশন (Site Mobilization)

বিল্ডিং লেআউট কি? প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ও মালামালসহ লেআউট দেওয়ার নিয়ম এবং কর্মপদ্ধতি।


সিভিল ইঞ্জিনিয়ারদের কাছে নির্মানাধীন যেকোন সাইট অনেকটা যুদ্ধক্ষেত্রের মতো। একটি ভবন নির্মাণ করতে গিয়ে ইঞ্জিনিয়ারদেরকে অনেক প্রতিকূল পরিবেশ-পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হয়। প্রার্থমিক প্রস্তুতি হিসেবে সাইট মোবিলাইজেশন (Site Mobilization) এর সময় বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের উপর ইঞ্জিনিয়ারদের নজর দিতে হয় যেগুলোকে তালিকা আকারে নিচে দেয়া হলোঃ  

১) পুরাতন বিল্ডিং থাকলে, ভাঙ্গার ব্যবস্থা করতে হবে।

২) গাছপালা থাকলে কাটার ব্যবস্থা করতে হবে।

৩) নিরাপত্তার জন্য বেষ্টনী বা বাউন্ডারী ওয়াল অথবা বেড়া দিয়ে নিতে হবে। 

৪) একটি শক্ত মেইন গেট লাগাতে হবে।

৫) পর্যাপ্ত সিকিউরিটি জনবল নিয়োগ করতে হবে এবং তাদের জন্য গার্ড পোস্ট তৈরী করতে হবে

৬) স্যুয়ারেজ লাইন, পানির লাইন, গ্যাস লাইন, বৈদ্যুতিক লাইন ব্যবস্থা আছে কিনা তা নিশ্চিত করতে হবে।

৭) প্রস্তাবিত ভবনের নকশা দেখে শ্রমিকদের থাকার ঘর বা লেবার শেড, ষ্টাফ লিভিং রুম, স্বাস্থ্যসম্মত বাথরূম বা টয়লেট, বিভিন্ন ধরণের মালামাল রাখার স্থান স্টোররুম, অফিস রুম নির্মাণ করতে হবে। এমনভাবে জায়গাগুলো নির্ধারণ করতে হবে যেন পরবর্তিতে ভবন নির্মানের ক্ষেত্রে কোনরকম অসুবিধা না হয়।  

৮) সর্বোত্তম জায়গা নির্ধারণ করে গ্যাস বার্নার ও ইলেট্রিক্যাল মিটার বোর্ড স্থাপণ করতে হবে যেন পরবর্তিতে ভবন নির্মানের ক্ষেত্রে কোনরকম অসুবিধা না হয়।    


পাইলিং (Piling) কি? যন্ত্রপাতিসহ পাইলিং করার নিয়ম ও পদ্ধতি


৯) বিশুদ্ধ খাবার পানির ব্যবস্থা রাখতে হবে।

১০) আর্কিটেকচারাল ড্রয়িং, স্ট্রাকচারাল ড্রয়িং, রাজউক এ্যপ্রুভাল ড্রয়িং, সার্ভে ড্রয়িং, সংগ্রহ করতে হবে।

১১) সাইন বোর্ড স্থাপন অর্থাৎ কোম্পানীর নাম লোগো এবং সাইটের নাম সম্বলিত সাইন বোর্ড স্থাপন করতে হবে।

১২) নির্মাণ কাজের জন্য প্রয়োজনীয় ঠিকাদার নিয়োগ দিতে হবে।

১৩) সম্পূর্ণ জায়গাকে লে-আউট দেওয়ার জন্য সমতল করতে হবে।

১৪) কাজের সাথে সংশ্লিষ্ট প্রয়োজনীয় বিভিন্ন যন্ত্রপাতি ও মালামালের সংগ্রহ করতে হবে। যেমন-  

সাইট ইকুইপমেন্ট: মিকচার মেশিন, ভাইব্রেটর মটর ও নজেল, পানির পাম্প, ইত্যাদি ।

ইলেকট্রিক্যাল সামগ্রী: ইলেক্ট্রিক্যাল মিটার,মিটারবোর্ড, তার, বাল্ব, হোল্ডার, সকেট, সুইচ, টেষ্টার, প্যায়ার্স ইত্যাদি ।

হার্ডওয়ার সামগ্রী: তারকাটা, সি.আই.সিট, চট্ট, পলিথিন, প্লেন সিট, বাঁশ ইত্যাদি ।

ষ্টেশনারী সামগ্রী: ফাইল কেবিনেট, চেয়ার, টেবিল, ক্যালকুলেটর, মেজারিং টেপ ইত্যাদি ।

সেনেটারী সামগ্রী: পানির মিটার, প্যান, পি.ভি.সি. পাইপ বেন্ড ইত্যাদি ।

কন্সট্রাকশন মেটারিয়াল: গ্রে সিমেন্ট, ষ্টোন চিপস, সিলেট বালি, লোকাল বালি, ব্রিক, এম.এস.রড, কাঠ,রশি ইত্যাদি ।

অন্যান্যঃ টর্চ লাইট,ফায়ার এক্সটিংগুইসার,চার্জার লাইট,পানির গ্লাস, জগ, পানির জার, কাপ সেট ইত্যাদি  

এই মালামালগুলি বিভিন্ন সাইটের জন্য বিভিন্ন রকম হতে পারে।

Google search engine

8 COMMENTS

  1. খুব সুন্দর। খুব ভালো লাগছে। এরকম একটি ওয়েবসাইট খুব দরকার ছিলো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here