ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation) সম্পর্কে বিস্তারিত

4
402
ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন কি বিল্ডিং ফাউন্ডেশন কত প্রকার ও কি কি
ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন কি বিল্ডিং ফাউন্ডেশন কত প্রকার ও কি কি বিস্তারিত তথ্য

ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation)

যেকোন কাঠামোর মাটির অভ্যন্তরে সর্বনিম্ন অংশই হলো ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation)। যার মাধ্যমে কাঠামোর লোড ভিত্তিতলে স্থানান্তর করে। এটি সুপার স্ট্রাকচারের বেইজ হিসেবে কাজ করে। কাঠামোর নিজস্ব ওজন এবং এর উপর আগত অন্যান্য লোড মাটির শক্ত স্তরে স্থানান্তর করার জন্য ভূ-নিম্নস্থে কংক্রিট, পাইল, র‍্যাফট বা ম্যাট, গ্রিলেজ ইত্যাদি সমন্বয়ে কৃত্রিমভাবে যে অংশটি তৈরি করা হয় তাকে ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation) বলে।

বিল্ডিং ফাউন্ডেশন (Building Foundation)

ইমারত বা বিল্ডিংয়ের উপর আগত সকল লোড মাটির শক্ত স্তরে স্থানান্তর করার জন্য বিল্ডিংয়ের সর্বনিম্ন যে অংশ কলামের সাপোর্ট (Support) হিসেবে ব্যবহৃত হয় তাকে বিল্ডিং ফাউন্ডেশন (Building Foundation) বলে। যেকোনো কাঠামোর ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation) অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। কোন কাঠামোর নির্মাণ কাজ হওয়ার পর এর এই ফাউন্ডেশন বা ভিত্তি বাহির থেকে দেখা যায় না বলে এর ব্যর্থতা খুব সহজে নির্ণয় করা যায় না এবং এটি রক্ষণাবেক্ষণ করাও কঠিন হয়ে পড়ে । সে কারণে যেকোন কাঠামোর ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation) ডিজাইন ও নির্মাণের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে হয়। প্রস্তাবিত জায়গার মাটি পরীক্ষার (Soil Test) মাধ্যমে ভিত্তির আকার এবং প্রকৃতি সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়।


পাইলিং (Piling) কি? যন্ত্রপাতিসহ পাইলিং করার নিয়ম ও পদ্ধতি


ফাউন্ডেশন বা ভিত্তির শ্রেণীবিভাগঃ

ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation) প্রধানত দুই প্রকার। যথা-
ক) অগভীর ভিত্তি (Shallow Foundation)
খ) গভীর ভিত্তি (Deep Foundation)

ক) অগভীর ভিত্তি (Shallow Foundation)

যে সকল ভিত্তির গভীরতা এর প্রস্থের সমান বা কম হয়ে থাকে সেগুলোকে অগভীর ভিত্তি (Shallow Foundation) বলে। অগভীর ভিত্তি সাধারণত ফুটিং (Footing) নামে পরিচিত। এসকল ভিত্তির মাটি মুক্তভাবে খনন করে নির্মাণ করা হয়। যার মুল উদ্দেশ্য হলো, কাঠামোর নিজস্ব ভর ও এর উপর আরোপিত লোডকে ভিত্তিতলের বৃহত্তর ক্ষেত্রের উপর ছড়িয়ে দেয়া।

অগভীর ভিত্তির শ্রেণীবিভাগঃ

অগভীর ভিত্তি (Shallow Foundation) কে চারটি ভাগে ভাগ করা হয়। যথা-
১) স্প্রেড ফুটিং (Spread Footing)
২) কম্বাইন্ড ফুটিং (Combined Footing)
৩) স্ট্রাপ ফুটিং (Strap Footing) বা ক্যান্টিলিভার ফুটিং (Cantilever Footing)
৪) র‍্যাফট বা ম্যাট ভিত্তি (Raft or Mat Foundation)


বিল্ডিং লেআউট কি? প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ও মালামালসহ লেআউট দেওয়ার নিয়ম এবং কর্মপদ্ধতি।


স্প্রেড ফুটিং (Spread Footing):
কাঠামোর বেইজকে ধাপে ধাপে প্রশস্ত করে কাঠামোর ভর বৃহত্তর এলাকায় বণ্টন করার জন্য যে ফুটিং নির্মাণ করা হয় থাকে তাকে স্প্রেড ফুটিং (Spread Footing) বলে। মাটির নিরাপদ ভারবহন ক্ষমতা অনুযায়ী ফুটিংকে ধাপে ধাপে চওড়া করা হয়। যে সমস্ত এলাকায় মাটির ভারবহন ক্ষমতা বেশী এবং মাটি ক্ষয় সাধনের সম্ভাবনা কম ঐ সমস্ত এলাকায় স্প্রেড ফুটিং ফাউন্ডেশন (Spread Footing Foundation) নির্মাণ করা হয়।

ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation) হলো যেকোন কাঠামোর মাটির অভ্যন্তরে সর্বনিম্ন অংশ। যার মাধ্যমে কাঠামোর লোড ভিত্তিতলে স্থানান্তর করে। এটি সুপার স্ট্রাকচারের বেইজ হিসেবে কাজ করে। কাঠামোর নিজস্ব ওজন এবং এর উপর আগত অন্যান্য লোড মাটির শক্ত স্তরে স্থানান্তর করার জন্য ভূ-নিম্নস্থে কংক্রিট, পাইল, র‍্যাফট বা ম্যাট, গ্রিলেজ ইত্যাদি সমন্বয়ে কৃত্রিমভাবে যে অংশটি তৈরি করা হয় তাকে ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation) বলে।

কম্বাইন্ড ফুটিং (Combined Footing):
দুই বা ততোধিক কলাম খুব কাছাকাছি ও মাটির ভারবহন ক্ষমতা কম হলে স্বতন্ত্র কলামগুলোর ভিত্তির জন্য অধিক পরিমান জায়গার প্রয়োজন হয়। ফলে, স্বতন্ত্র কলামের ফুটিংগুলো ওভারল্যাপ হলে দুই বা ততোধিক কলামকে একটি স্প্রেড ফুটিং (Spread Footing) এর মাধ্যমে সাপোর্ট দেয়া হয়। এই ধরনের ফুটিংকে কম্বাইন্ড ফুটিং (Combined Footing) বলে। ফুটিং সীমানার প্রান্ত রেখায় পড়ে যাওয়ার ফলে ফুটিংকে সীমানা রেখার বাহিরে বর্ধিত করার সুযোগ না থাকলে সেক্ষেত্রেও কম্বাইন্ড ফুটিং (Combined Footing) ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation) হলো যেকোন কাঠামোর মাটির অভ্যন্তরে সর্বনিম্ন অংশ। যার মাধ্যমে কাঠামোর লোড ভিত্তিতলে স্থানান্তর করে। এটি সুপার স্ট্রাকচারের বেইজ হিসেবে কাজ করে। কাঠামোর নিজস্ব ওজন এবং এর উপর আগত অন্যান্য লোড মাটির শক্ত স্তরে স্থানান্তর করার জন্য ভূ-নিম্নস্থে কংক্রিট, পাইল, র‍্যাফট বা ম্যাট, গ্রিলেজ ইত্যাদি সমন্বয়ে কৃত্রিমভাবে যে অংশটি তৈরি করা হয় তাকে ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation) বলে।

স্ট্রাপ ফুটিং ফুটিং (Strap Footing) বা ক্যান্টিলিভার ফুটিং (Cantilever Footing):
দুই বা ততোধিক স্বতন্ত্র কলামের ফুটিংগুলোকে যখন বীম দ্বারা সংযোগ করে একটি ফুটিং এ অন্তর্ভুক্ত করা হয় তখন তাকে স্ট্রাপ ফুটিং (Strap Footing) বা ক্যান্টিলিভার ফুটিং (Cantilever Footing) বলে । যখন একটি কলামের ফুটিং অন্য একটি ইসেনট্রিক কলামকে সাপোর্ট দেয় এবং পার্শ্ববর্তী কলাম তুলনামূলক দূরে হওয়ার দরুন নির্মাণ খরচ কমানোর জন্য কম্বাইন্ড ফুটিং এর পরিবর্তে এই ধরনের ফুটিং ডিজাইন করা হয়।

ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation) হলো যেকোন কাঠামোর মাটির অভ্যন্তরে সর্বনিম্ন অংশ। যার মাধ্যমে কাঠামোর লোড ভিত্তিতলে স্থানান্তর করে। এটি সুপার স্ট্রাকচারের বেইজ হিসেবে কাজ করে। কাঠামোর নিজস্ব ওজন এবং এর উপর আগত অন্যান্য লোড মাটির শক্ত স্তরে স্থানান্তর করার জন্য ভূ-নিম্নস্থে কংক্রিট, পাইল, র‍্যাফট বা ম্যাট, গ্রিলেজ ইত্যাদি সমন্বয়ে কৃত্রিমভাবে যে অংশটি তৈরি করা হয় তাকে ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation) বলে।

র‍্যাফট বা ম্যাট ভিত্তি (Raft or Mat Foundation):
যখন একটি যুক্ত ফুটিং কাঠামোর ভূনিম্নস্থ সম্পূর্ন ক্ষেত্রকে আবৃত করে কাঠামোর মেইন ওয়াল বা কলামকে একত্রে সাপোর্ট প্রদান করে, তখন নির্মিত ঐ ভিত্তিকে ম্যাট বা র‍্যাফট ভিত্তি বলে। এটি একটি যুক্ত ফুটিং যা কাঠামোর ভূনিম্নস্থ সমস্ত ক্ষেত্রফল নিয়ে নির্মাণ করা হয়। মাটির ভারবহন ক্ষমতা কম হলে, কলামের ওপর লোড অধিক পরিমানে হলে, স্বতন্ত্র ফুটিং বা অন্য কোন ফুটিং ব্যবহার সম্ভব না হলে এ ধরনের ফাউন্ডেশন ডিজাইন করা হয়ে থাকে।

ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation) হলো যেকোন কাঠামোর মাটির অভ্যন্তরে সর্বনিম্ন অংশ। যার মাধ্যমে কাঠামোর লোড ভিত্তিতলে স্থানান্তর করে। এটি সুপার স্ট্রাকচারের বেইজ হিসেবে কাজ করে। কাঠামোর নিজস্ব ওজন এবং এর উপর আগত অন্যান্য লোড মাটির শক্ত স্তরে স্থানান্তর করার জন্য ভূ-নিম্নস্থে কংক্রিট, পাইল, র‍্যাফট বা ম্যাট, গ্রিলেজ ইত্যাদি সমন্বয়ে কৃত্রিমভাবে যে অংশটি তৈরি করা হয় তাকে ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation) বলে।

সাইট মোবিলাইজেশন কি? মোবিলাইজেশনের ক্ষেত্রে কোন বিষয়গূলো গুরুত্বপুর্ণ?


খ) গভীর ভিত্তি (Deep Foundation)

যে সকল ভিত্তির গভীরতা প্রস্থের তুলনায় অনেক বেশি হয়ে থাকে তাদেরকে গভীর ভিত্তি বলা হয়। সাধারণ নিয়মে গর্ত খনন করে এই ভিত্তি নির্মাণ করা হয় না। ভূপৃষ্ঠের কাছাকাছি উপযোগী ভারবহন ক্ষমতাসম্পন্ন কোন স্তর পাওয়া না গেলে কাঠামোর নিজস্ব ভর ও এর উপর আগত লোড সমূহ প্রয়োজনীয় ভারবহন ক্ষমতা সম্পন্ন স্তরে স্থানান্তরের জন্য মাটির অনেক গভীরে কাঠামোর ভিত্তি স্থাপন করতে হয়। এই জাতীয় ভিত্তিকেই গভীর ভিত্তি (Deep Foundation) বলা হয়।

গভীর ভিত্তির শ্রেণীবিভাগঃ

গভীর ভিত্তিকে চারটি ভাগে ভাগ করা হয়। যথা-
ক) পাইল ভিত্তি (Pile Foundation)
খ) কফার ড্যাম (Cofferdam)
গ) কেইসন বা কুপ ভিত্তি ( Caisson/Well Foundation )

পাইল ভিত্তি (Pile Foundation):
কাঠামোর নিজস্ব ভর ও এর উপর আগত লোড সমূহ স্থানান্তরের জন্য প্রয়োজনীয় মাটির ভারবহন ক্ষমতা সম্পন্ন স্তরের গভীরতা অত্যধিক বেশী হলে অথবা ভূপৃষ্ঠ অত্যধিক ঢালবিশিষ্ট হলে সেখানে পাইলের উপর ঐ কাঠামোর যে ভিত্তি নির্মাণ করা হয় তাকে পাইল ভিত্তি বলা হয়। জলাবদ্ধ মাটি, সংকোচনশীল মাটি, ভরাটকৃত মাটি ইত্যাদির ক্ষেত্রে যেকোন ধরনের কাঠামোর জন্য পাইল ভিত্তি অন্যান্য ভিত্তির তুলনায় অধিক নিরাপদ।

ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation) হলো যেকোন কাঠামোর মাটির অভ্যন্তরে সর্বনিম্ন অংশ। যার মাধ্যমে কাঠামোর লোড ভিত্তিতলে স্থানান্তর করে। এটি সুপার স্ট্রাকচারের বেইজ হিসেবে কাজ করে। কাঠামোর নিজস্ব ওজন এবং এর উপর আগত অন্যান্য লোড মাটির শক্ত স্তরে স্থানান্তর করার জন্য ভূ-নিম্নস্থে কংক্রিট, পাইল, র‍্যাফট বা ম্যাট, গ্রিলেজ ইত্যাদি সমন্বয়ে কৃত্রিমভাবে যে অংশটি তৈরি করা হয় তাকে ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation) বলে।

কফার ড্যাম (Cofferdam):
কফার ড্যাম এক ধরনের অস্থায়ী বেষ্টনী বিশেষ, যা নদী, লেক, হৃদ ইত্যাদি জলাবদ্ধ এলাকায় নির্মানকাজ চলাকালে পানি অনুপ্রবেশে বাধাদান করে। নির্মাণ এলাকা সম্পূর্ণরুপে শুষ্ক রাখার জন্য প্রথমে কফার ড্যাম তৈরী করে পরে পানি নিষ্কাশন করা হয়। কফার ড্যামের দেয়ালগুলো যথাসম্ভব পানি নিরোধ হওয়া অত্যন্ত জরুরী।

ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation) হলো যেকোন কাঠামোর মাটির অভ্যন্তরে সর্বনিম্ন অংশ। যার মাধ্যমে কাঠামোর লোড ভিত্তিতলে স্থানান্তর করে। এটি সুপার স্ট্রাকচারের বেইজ হিসেবে কাজ করে। কাঠামোর নিজস্ব ওজন এবং এর উপর আগত অন্যান্য লোড মাটির শক্ত স্তরে স্থানান্তর করার জন্য ভূ-নিম্নস্থে কংক্রিট, পাইল, র‍্যাফট বা ম্যাট, গ্রিলেজ ইত্যাদি সমন্বয়ে কৃত্রিমভাবে যে অংশটি তৈরি করা হয় তাকে ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation) বলে।

কেইসন বা কুপ ভিত্তি (Caisson or Well Foundation):
কাঠ, স্টীল অথবা আরসিসি অন্য কোন ম্যাটেরিয়াল দ্বারা নির্মিত বাক্সের মতো আয়তাকার অথবা বৃত্তাকার পানিরোধী কাঠামোকে কেইসন বলে। মাটি অথবা পানির নীচে প্রয়োজনীয় গভীরতায় ভিত্তিকে স্থাপনের জন্য কেইসন স্থাপন করা হয়। সাধারণত ব্রীজ,পায়ার অথবা এবাটমেন্ট এর ভিত্তি নির্মাণের জন্য কেইসন ব্যবহার করা হইয়ে থাকে।  

ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation) হলো যেকোন কাঠামোর মাটির অভ্যন্তরে সর্বনিম্ন অংশ। যার মাধ্যমে কাঠামোর লোড ভিত্তিতলে স্থানান্তর করে। এটি সুপার স্ট্রাকচারের বেইজ হিসেবে কাজ করে। কাঠামোর নিজস্ব ওজন এবং এর উপর আগত অন্যান্য লোড মাটির শক্ত স্তরে স্থানান্তর করার জন্য ভূ-নিম্নস্থে কংক্রিট, পাইল, র‍্যাফট বা ম্যাট, গ্রিলেজ ইত্যাদি সমন্বয়ে কৃত্রিমভাবে যে অংশটি তৈরি করা হয় তাকে ভিত্তি বা ফাউন্ডেশন (Foundation) বলে।

Google search engine

4 COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here